অষ্টম আশ্চর্য্য

ভদ্রলোকের নাম ডেভিড জোনস। পেশায় সাংবাদিক। কাজ করেন ইংল্যাণ্ডের নাম করা দৈনিক ডেইলি মেলে। সেই ডেইলি মেলেই গত বুধবার তাঁর লেখা একটি প্রতিবেদন সারা ফেলে দিয়েছে আন্তর্জাতিক মহলে। প্রতিবেদনটির শিরোনাম: “The monstrous monument to Narendra Modi’s ego: As millions suffer in pandemic, India’s narcissistic Prime Minister is building a vast folly at a cost that could fund 40 major hospitals. Now his nation is in uproar”। এই মুহুর্তে যে হিসেব পাওয়া যাচ্ছে। এখন অব্দি ভারতে দুই লক্ষ চৌত্রিশ হাজার সাতশ পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। স্বভাবতঃই আসল সংখ্যা তার থেকে অনেক বেশি। দৈনিক সংক্রমণ চার লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। দৈনিক মৃত্যু প্রায় চার হাজারের গণ্ডীতে দাঁড়িয়ে। ডেইলি মেলে যে প্রতিবেদনটি আন্তর্জাতিক মহলে সাড়া ফেলে দিয়েছে, তার মূল বক্তব্যের সাথে হয়তো অনেকেই একমত হবেন না। কিন্তু এটা ঘটনা, দিল্লীতেই যেখানে শ্মশানের পর শ্মশানে দিনরাত চিতার আগুন জ্বলছে। শুধু মাত্র একটা অক্সিজেনের সিলিণ্ডারের খোঁজে মানুষ হন্যে হয়ে এই দরজা থেকে ঐ দরজায় ঘুরে মরছে। সেখানে প্রাথমিক হিসাব অনুসারে কুড়ি হাজার কোটি টাকার বাজেটে শুরু হয়েছে দেশ প্রধানের সাধের প্রকল্প। সেন্ট্রাল ভিস্তা। তৈরী হচ্ছে বিশ্বের বৃহত্তম সংসদ ভবন সহ এক সামগ্রিক প্রশাসনিক কমপ্লেক্স। যে কমপ্লেক্সে থাকবে দেশের প্রধান মন্ত্রীর বাসভবনও। ডেইলি মেলের এই প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে প্রকল্পের প্রাথমিক ব্যায় বরাদ্দের হিসাবে ধরলেই এই একই টাকায় গড়ে তোলা যেত বিশ্ব মানের চল্লিশটি বৃহৎ হাসপাতাল। যেখানে হয়তো সব রকমের চিকিৎসার সুযোগ থাকতে পারতো। প্রতিবেদনটি থেকে আরও জানা যাচ্ছে, প্রায় পঞ্চাশটি ফুটবল স্টেডিয়াম গড়ে তোলার মতো জায়গা জুড়ে এই বিশাল কর্মযজ্ঞ শুরু হয়েছে। যেখানে দৈনিক প্রায় দুই হাজারের কিছু বেশি শ্রমিক কাজ করে চলেছে। এবং মনে রাখতে হবে দিল্লীতে এই মুহুর্তে চলছে লকডাউন। তাহলে এত এত শ্রমিক এক সাথে কি করে দুইবেলা কাজ করে চলেছে? লকডাউনের ভিতরেই। এটি সম্ভব হয়েছে, প্রকল্পের আওতায় থাকা এই বিস্তৃত অঞ্চলটিকে লকডাউনের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে বলেই। কিন্তু কি করে সম্ভব হলো সেটি? কোন আইনের বলে? স্বাভাবিক ভাবেই এই প্রশ্নটি উঠে আসে। তারও উত্তর রয়েছে। কেন্দ্র সরকার এই প্রকল্পের নির্মাণ কাজকে অত্যাবশ্যকীয় পরিসেবা আইনের ভিতরে নিয়ে এসেছে। ফলে প্রায় যুদ্ধকালীন তৎপরতায় এগিয়ে চলেছে সেন্ট্রাল ভিস্তা নির্মাণের কাজ। এবং মনে রাখতে হবে ভারতবর্ষে করোনা সংক্রমণের এই রকম ভয়াবহ পরিস্থিতির ভিতরে অত্যাবশ্যকীয় পরিসেবা আইনে কোন হাসপাতাল নির্মাণ কর্মের খবর নাই আমাদের কাছে। কিন্তু গড়ে উঠছে সেন্ট্রাল ভিস্তা।

বিস্তারিত পড়ুন