*

মিডিয়া হাউস এবং মিডিয়া লাইজ

১৯৭৫ সাল। সায়গনের পতন। হোচিমিনের হাতে পরাস্ত হয়ে মার্কিনশক্তি একটি বড়ো শিক্ষা গ্রহণ করে। না, বিশ্বজুড়ে অন্যায় যুদ্ধ সংগঠিত করা থেকে সরে আসার শিক্ষা নয়। আগে বিশ্বজুড়ে মানুষকে টুপি পরিয়ে তারপরে কোন অপকর্মে নামার শিক্ষা। এই শিক্ষাটুকু আমেরিকার আগে ছিল না। ছিল না বলেই ভিয়েতনামে মার্কিন ভণ্ডামির বিরুদ্ধে খোদ মার্কিন মুলুকের জনগণও গর্জে উঠেছিল। ভিয়েতনামে…

পড়তে থাকুন

হিজাব একটি অজুহাত

হিজাবধারী শিক্ষার্থীদের কলেজে ঢোকা নিষিদ্ধ। ক্লাস করা ও পরীক্ষা দেওয়া নিষিদ্ধ। হ্যাঁ আম্বেদকার প্রণীত সংবিধানের শপথ নেওয়া সরকারের পরিচালিত একটি সরকারী স্কুলে এমনই ফতোয়া দেওয়া হয়েছে। স্কুল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে। হিজাবধারী শিক্ষার্থীরা অবশ্য হাইকোর্টে আবেদন করেছে। হিজাব পরে কলেজে ঢোকার এবং ক্লাস করা ও পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার ফিরে পাওয়ার জন্যে। আমাদের আলোচনা…

পড়তে থাকুন

দিবানিদ্রার দিনগুলি

কার স্বার্থে এই লকডাউন? আমরা এদিকে নিশ্চিত ভাবে বিশ্বাস করে বসে রয়েছি, আমাদের স্বার্থেই তো লকডাউন। আমরা যাতে আরও কয়টি দিন বেশি বেঁচে থাকি। সেটি নিশ্চিত করতেই না এই লকডাউন। কথায় বলে বিশ্বাসে মিলায় বস্তু। তর্কে বহুদূর। না, তাই তো আমরা যেমন ঈশ্বর বিশ্বাস নিয়েও তর্ক করতে রাজি নই। ঠিক তেমনই লকডাউন কাদের স্বার্থ পূরণ…

পড়তে থাকুন

বৈবাহিক ধর্ষণ সমাজ ও আইন

আপনার স্ত্রী কি আপনার সম্পত্তি? আপনিও কি মনে করেন আপনি আপনার আপন স্বামীর সম্পত্তি? ভারতবর্ষের সুপ্রীম কোর্ট অবশ্য গতবছর মার্চ মাসে একটি মামলার রায়ে জানিয়ে দিয়েছে, স্ত্রী কখনোই স্বামীর অধিকৃত সম্পত্তি নয়। শুধু তাই নয়। রায়ে আরও বলা হয়েছে, স্ত্রী’র ইচ্ছের বিরুদ্ধে তার সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করাও বেআইনি কার্যকলাপ। এখন সুপ্রীম কোর্টের এই রায়…

পড়তে থাকুন

কৃষক আন্দোলনের ৩৬৫ দিন

আজ বর্ষশেষ। বছরের শেষতম দিন। না আন্তর্জাতিক ক্যালেণ্ডারের হিসেবে নয়। নয় আমাদের বঙ্গাব্দের হিসেবেও। এই হিসেব কৃষকাব্দের। ভারতীয় কৃষক আন্দোলনের আজ তিনশো পঁয়ষট্টিতম দিবস। একটানা ৩৬৫ দিন ভারতীয় কৃষক দিল্লীর সীমানায় রাজপথে বসে রয়েছে। অবস্থান আন্দোলনে। সৌজন্যে সাংবিধানিক ভাবে নির্বাচিত কেন্দ্রীয় সরকার। কৃষক আন্দোলনের প্রধানতম ট্র্যাজেডি এইখানেই। যে কৃষকরা তাদের সাংবিধানিক দায়িত্বে গণতান্ত্রিক অধিকারে দেশের…

পড়তে থাকুন

মন্ত্রীপুজো

জীবিত মন্ত্রীর নামে স্টেডিয়াম কিংবা মন্ত্রীর আদলে দুর্গা মূর্তি দুই’ই গণতন্ত্রের পক্ষে বিপদজনক। একটির সমালোচনা করেও অন্যটির সমালোচনা না করা আরো বেশি বিপদজনক। সমালোচনা বা বিরোধীতা করলে দুই ক্ষেত্রেই করা উচিত। কিন্তু গণতান্ত্রিক পরিসরে উল্টোটি ঘটলে সেটা রাজনৈতিক দেউলিয়াপনারই নিদর্শন। গণতন্ত্রের মুখ্য অভিমুখ যখণ গণ থেকে বিচ্যুত হতে শুরু করে ক্ষমতাতন্ত্রের অভিমুখে ধাওয়া করতে থাকে।…

পড়তে থাকুন

দলবদলের পালায় নিহত গণতন্ত্র

রাজনৈতিক দলবদলের পালা চলতেই থাকবে। যখন যেখানে মধুভাণ্ড। তখন নেতা থেকে নেত্রী সেখানে সুইচ ওভার করবে। অনেকটা মিউচ্যুয়াল ফাণ্ডের ইনভেস্টারদের মতো। নির্বাচনের আগে এবং পরে। সময় ও সুযোগ বুঝে। দর কষাকষি করে। কখনো সখনো বা সিবিআই কিংবা ইডি’র জুজু দেখেও দল বদল চলতে থাকবে। ফুটবলের দল বদলের মতো রাজনীতির দলবদলেও অর্থের একটা ভুমিকা থাকে। তবে…

পড়তে থাকুন

বায়োলজিক্যাল ওয়েপন নয় কোভিড-১৯

বিশ্বপতি জো বাইডেনের দপ্তরে সম্প্রতি এক তদন্তের রিপোর্ট জমা পড়েছে। তদন্ত কি নিয়ে? না করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি কোথা থেকে ও কিভাবে, সেই বিষয় নিয়েই তদন্ত। না, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই তদন্তের সাথে যুক্ত নয়। গোটা বিশ্বের হয়ে বিশ্বের এক মাত্র অভিভাবক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই তদন্তের দায়িত্ব নিয়েছিল। কিন্তু কোন কোন সংস্থাকে দিয়ে তারা সেই তদন্তকর্ম…

পড়তে থাকুন

পরীমনিদের বাংলাদেশ

পরীমনি কাণ্ডে আমরা বর্তমান বাংলাদেশের একটা স্পষ্ট ছবি দেখতে পাচ্ছি। বাংলাদেশে যে কর্পোরেট শক্তির উদয় হয়েছে। তারাই মূলত রাষ্ট্রের পরিচালন ব্যবস্থার নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে রাখতে চাইছে। এবং রেখেওছে অনেকটা। সেটা একটা দিক। রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক অভিমুখে কর্পোরেট শক্তি নিজেদের স্বার্থ বুঝে নিতে চাইবে। সেটা অস্বাভাবিক নয়। এতবড়ো দেশ ভারতবর্ষ। বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের ঢক্কা নিনাদ বাজতে…

পড়তে থাকুন

তালিবানী আতঙ্ক

দেশ জুড়ে সকলেরই মাথা ব্যাথার বিষয় হয়ে উঠেছে তালিবানদের আফগানিস্তান দখল। প্রায় গেল গেল রব। আফগানবাসীদের সব গেল সর্বস্ব চলে গেল। নারীর শিক্ষার অধিকার চলে গেল। নারীর বাড়ীর বাইরে যাওয়ার অধিকার চলে গেল। নারী স্বাধীনতা চলে গেল। আফগান রমনীদের নিয়ে দেশজুড়ে এত মানুষের এত আবেগও জমা হয়ে ছিল? আফগানিস্তান আবার বর্বর জুগে ফিরে গেল বলে…

পড়তে থাকুন

লেটস্ স্টার্ট করোনা ড্যান্স

লেটস্ স্টার্ট করোনা ড্যান্স। বক্তা মাত্র চার বছরের এক শিশু। দিদিমার সাথে খেলা করতে করতে মিউজিক্যাল কীবোর্ডে চাপ দিয়ে। কী অমোঘ উচ্চারণ! আসুন করোনা নাচ নাচি। সরকার বলেছে আসুন সকলে মিলে করোনা নাচ নাচি। ডাক্তার বলছে আসুন সকলে মিলে করোনা নাচ শুরু করে দিই। না হলে এই মহামারী সামলানো যাবে না। মিডিয়া বলছে লেটস্ স্টার্ট…

পড়তে থাকুন

লক্ষ্মীর ভাণ্ডার

লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে মাসে পাঁচশো টাকা প্রাপ্তির জন্য পঁচিশ থেকে ষাট বছরের মহিলাদের পথে নামিয়ে দিয়েছে সরকার। দূয়ারে সরকার। অতয়েব বাড়ির মহিলাদের তো আর বাড়িতে বসে থাকার উপায় নাই। স্বহস্তে ফর্ম তুলতে হবে। কে কার আগে ফর্ম তুলবে। তাই ঠেলাঠেলি। সারাদিন লাইনে গুঁতোগুঁতি করে যদি একটা ফর্ম তোলা যায়। তাই যেখানেই দূয়ারে সরকার টেবিল চেয়ার পেতে…

পড়তে থাকুন

৮৮৬ টাকা ৫০ পয়সা

৮৮৬ টাকা ৫০ পয়সা। এক সিলিণ্ডার রান্নার গ্যাসের দাম। ঘরে ঘরে দামী দামী খাবারের আয়োজন। তা সে পান্তা ভাতই হোক না কেন। পান্তা ভাত রাঁধার জন্যে গ্যাসের দামে কোন ছাড় মিলবে না। পোলাও কিংবা বিরিয়ানি রাঁধতেও একই দাম দিয়ে সিলিণ্ডার কিনতে হবে। হ্যাঁ ত্রিশ পঁচিশ টাকা ভর্তুকি মিলবে বইকি। ব্যাংকের পাস বইয়ে। এমন সরকার কোথাও…

পড়তে থাকুন

আফগানিস্তানে পালাবদল?

অবশেষে মার্কিন মদতপুষ্ট আফগান সরকারের পতন হয়েছে। আফগান রাষ্ট্রপতি আশরাফ ঘানি দেশ থেকে পলাতাক। একেবারে শেষ মুহুর্তের খবর, আফগান সেন্ট্রাল ব্যাংকের কোটি কোটি নগদ অর্থ সোনাদানা সহ রাষ্ট্রপ্রধান দেশ ছেড়েছেন। পলাতক রাষ্ট্রপ্রধান অবশ্য দেশছাড়ার একটি ব্যাখ্যাও দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন রক্তপাত বন্ধ করতেই তাঁর এই দেশত্যাগ। খবরে জানা যাচ্ছে, প্রায় বিনা প্রতিরোধে তালিবানরা কাবুল দখল করে…

পড়তে থাকুন

বৈবাহিক ধর্ষণ

কি আশ্চর্য্য! আমরা এমন একটি রাষ্ট্রের নাগরিক, যে রাষ্ট্রের আইন বৈবাহিক ধর্ষণকে দণ্ডনীয় অপরাধ বলে গণ্য করে না। আমরা কি আদৌ সভ্য? এটা কি একটি সভ্য সমাজ? যে সমাজে বৈবাহিক ধর্ষণকে দণ্ডনীয় অপরাধ বলেই গণ্য করা হয় নয়। কি চমৎকার। হ্যাঁ এটা পিতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা। এককালে এই সমাজে দেবদাসী প্রথার চল ছিল। আজও হয়তো চলে…

পড়তে থাকুন

এক ভুখণ্ডের মাটিতে

একথা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই, বাঙালি মাত্রেই আমরা সাম্প্রদায়িক। আবার শুধু যে সাম্প্রদায়িক তাও নয়। আমরা গভীর ভাবে জাতপাতেও বিশ্বাসী। আমরা প্রথমেই দেখে নিই, কে হিন্দু কে মুসলিম। তারপরেই দেখি কে নীচু জাত। কে উঁচু জাত। আর এই দেখে নেওয়ার পর্ব শুরু হয়, আমাদের নাম ও পদবী দেখা থেকেই। তারপর পোশাক আশাক দেখেও অনকটা…

পড়তে থাকুন

স্কুল খোলার ঘন্টা

অবশেষে স্কুল খোলার ঘন্টা কি বাজতে চলেছে? গত বছর মার্চের প্রথমেই স্কুলগুলি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। সেই থেকে স্কুল কলেজের পড়ুয়ারা এক কথায় স্কুলছুট অবস্থায় পড়ে রয়েছে। অনলাইন ক্লাসের সুযোগ প্রাপ্ত সৌভাগ্যবানেরা মধ্যবর্তী সময়ে কতটা শিক্ষার্জন করতে পেরেছে সঠিক ভাবে বলা সম্ভব নয়। আর অনলাইন ক্লাসের আওতার বাইরে পড়ে থাকাদের পক্ষে পরবর্তী পড়াশুনা চালিয়ে নিয়ে…

পড়তে থাকুন

নুসরতের গর্ভে কার সন্তান

সাংসদ ও চলচিত্র অভিনেত্রী নুসরতের গর্ভে কার সন্তান, সেই নিয়ে উত্তাল মিডিয়া ও জনতা। এবং আশ্চর্য্যের বিষয় একুশ শতকে পৌঁছিয়েও কারুরই মনে হচ্ছে না, নুসরতের গর্ভে নুসরতেরই সন্তান থাকার কথা। অন্য কারুর সন্তান হতে পারে একমাত্র তখনই নুসরত যদি সারোগেট মাদার হওয়ার বরাত নিয়ে থাকেন। না নিলে কোটি কোটি নারীর মতোই একজন নারীর গর্ভে তাঁর…

পড়তে থাকুন

বেআইনী ধারার বেআইনী প্রয়োগ

কথায় বলে পুলিশে ছুঁলে আঠারো ঘা। আর যে যায় লঙ্কায় সেই হয় রাবণ। কথাদুটি যে কতটা সত্য। বোঝা যাচ্ছে বর্তমান ভারতে। যেভাবেই হোক কোন অভিযোগে পুলিশের খাতায় একবার নাম উঠে গেলেই হলো। দিনের পর দিন আদালতের চক্করে পড়ে থাকো। বছরের পর বছর গড়িয়ে যাবে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে। এবং শেষমেশ স্বসম্মানে বেকসুর খালাস হলেও, দোষী…

পড়তে থাকুন

কুকুরকুণ্ডলী

এবারের বিধানসভা নির্বাচনের পর্বে পদ্মশিবিরের সভাপতির গাড়ীর কনভয়ের উপরে রাজ্যের শাসকদলের কর্মীসমর্থকদের হামলার ঘটনা অনেকেই হয়তো ভুলে জাননি এর মধ্যেই। সেই হামলা নিয়ে দুই শিবিরের ভিতর রাজনৈতিক কাদা ছোঁড়াছুঁড়িও কম হয়নি। আমাদের দেশে এই সব হামলা অবরোধ ভাঙচুড় হলেই এক দল আরেক দলের কর্মীসমর্থকদের দুষ্কৃতী বলে সম্বোধন করে থাকে। এবং হামলা প্রতিরোধ অবরোধের সম্মুখীন হলেই,…

পড়তে থাকুন

বনসাই সংস্কৃতি

শরীর একটা বড়ো ব্যাপার। শরীরটা যতক্ষণ, ততক্ষণই বাকি সব। শরীরটাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্যেই বাকি সব কিছু। শরীরটাকে টিকিয়ে রাখার জন্যেই জীবনযুদ্ধ। পরস্পর প্রতিযোগিতা হানাহানি। আবার সেই শরীরটাকেই শাখা প্রশাখায় প্রলম্বিত করার জন্যেই বংশবিস্তার। আদতে জীবজগতের আগাগোড়াই আসল গল্পটা একান্তই শারীরীক। মানুষের জীবনও সেইরকমই শরীর সর্বস্ব এক মহাকাব্য। এই শরীরটাকে জানার ভিতর দিয়েই মানুষের জীবনে প্রথম…

পড়তে থাকুন

সেলিব্রেটিদের সমাজসেবা

মন্ত্রীত্ব হারিয়ে তাঁর বোধদয় হলো, রাজনীতি বাদ দিয়েও সমাজ সেবা করা যায়। যদিও তিনি পূর্ণ মন্ত্রীত্ব পাননি কোনদিন। শোনা যায় প্রতিমন্ত্রীদের টেবিলে কোন ফাইল গিয়ে পৌঁছায় না। কিন্তু মন্ত্রীর ঠাটবাঁট সুযোগ সুবিধে আর্থিক সমৃদ্ধি সবই পাওয়া যায়। ফলে রাজনীতির ময়দানে হাফ মন্ত্রীরও উচ্চদর। তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ গাড়ীর বনেটে উপরে বসে সেদিন সেই দর হাতে…

পড়তে থাকুন

অলিম্পিকের পদকতালিকায় বাঙালি

যতদূর বাংলা ভাষা ততদূর বাংলা। স্বাধীন বাংলাদেশ। পশ্চিমবঙ্গ ত্রিপুরা। এবং উত্তরপূর্ব উড়িষ্যা। ঝাড়খণ্ড বিহারের পূ্র্বাঞ্চল। আসামের শিবসাগর গোয়ালপাড়া আর বরাক উপত্যাকা। এই বিস্তীর্ণ ভুখণ্ডই বাঙালির আদিনিবাস। সারা বিশ্বে বাঙালির দশা প্রায় অনন্য। বিশ্বে খুব কম জাতিই রয়েছে। এমন শতটুকরো হয়ে যাদের দেশ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও প্রাদেশিক মানচিত্রে খণ্ড বিখণ্ড। এই এতগুলি ভিন্ন মানচিত্রের ভিতরে বিভক্ত…

পড়তে থাকুন

মুখ্যমন্ত্রীর দিল্লী সফর

উপনির্বাচন সময় মতো না হলে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে গদি ছেড়ে নেমে আসতে হবে। কিংবা সময় মতো হওয়া উপনির্বাচনেও পরাজিত হলে মুখ্যমন্ত্রীত্ব খোয়াতে হবে। না অতি বড়ো তৃণমূল বিরোধীরাও আশা করে না, উপনির্বাচন হলে সেই নির্বাচনেও পরাজিত হবেন রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যবাসীর একটা বড়ো অংশের ভোটাররা এখনো বিশ্বাস করে। নন্দীগ্রামে কোন না কোনভাবে কারচুপি করে মুখ্যমন্ত্রীকে হারিয়ে…

পড়তে থাকুন

পেগাসাস কেলেঙ্কারি ও রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা

পেগাসাস ইস্যু নিয়ে দেশ উত্তাল। প্রতিটি দেশপ্রেমিক ভারতীয়ই বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে দিন কাটাচ্ছেন। শাসকদল বিরোধীরা পেগাসাস কেলেঙ্কারিকে হাতে গরম রাজনৈতিক অস্ত্র করে তুলতে উঠে পড়ে লেগেছে। এবং গণতন্ত্রপ্রেমী প্রতিটি মানুষই ফোনে আড়ি পাতার বিষয়টিতে যথেষ্ঠই ভীত সন্ত্রস্ত। শুধুমাত্র শাসকদলেরই মুখে রা নেই। সরকার এই কেলেঙ্কারির সাথে জড়িত কিনা। সেই বিষয়ে সরকার মুখে কুলুপ এঁটেছে।…

পড়তে থাকুন

কেন্দ্র রাজ্য সম্পর্ক

রাজ্যে ২০১১ সালের পরিবর্তনের পর থেকে সরকারী বেসরকারী উভয় ক্ষেত্রেই কর্মসংস্থানের সুযোগ কমতে কমতে প্রায় তলানিতে। নতুন নতুন কর্মসংস্থান তো দূরের কথা। ভারত সরকারের অধীনস্ত বিভিন্ন সরকারী সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানেও নতুন কর্মসংস্থানের প্রক্রিয়া রুদ্ধ প্রায়। রাজ্যের অধীনস্থ সরকারী দপ্তর ও রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও নতুন কর্মসংস্থান তৈরী হয়নি বিশেষ। হাজার হাজার শূন্যপদ খালি পড়ে রয়েছে।…

পড়তে থাকুন

কেমন আছো দেবাঞ্জন?

দেবাঞ্জন কেমন আছে? তার পেট থেকে কি কথা বার করা গিয়েছে? পাওয়া গিয়েছে সেই মূল্যবান নামগুলি? যারা কলকাতা কর্পোরেশনের ভেতরে থেকে তাকে নিরন্তর সাহায্য করে যেতো? তার জালিয়াতির সাম্রাজ্য গড়ে তুলতে। ভুয়ো আইপিএস আইএএস। ভুয়ো সিবিআই আধিকারিক। ভুয়ো উকিল। অনেকেই চেষ্টা করলে হতে পারে। কিন্তু কলকাতা কর্পোরেশনের নামে আস্ত একটা ভুয়ো অফিস যে কেউ খুলে…

পড়তে থাকুন

ডোমের পদে ইঞ্জিনিয়ার

অবশেষে সরকারী হাসপাতালে ছয়টি ডোমের পদে চাকরির প্রত্যাশায় একশ ইঞ্জিনিয়ার সহ কয়েক হাজার গ্র্যজুয়েট পোস্ট গ্র্যজুয়েট কর্মপ্রার্থী আবেদন পত্র জমা দিয়েছেন। যে পদে চাকুরির ন্যূনতম যোগ্যতা নির্ধারিত হয়েছে অষ্টম শ্রেণী পাশ। রাজ্যে সরকারী বেসরকারী চাকরির পরিসর সীমিত হতে হতে কোন অবস্থায় এসে পৌঁছিয়েছে, সেটি বুঝতে আর বেশি কিছু তথ্য জানার প্রয়োজন পড়ে না। পরিবর্তনের পর…

পড়তে থাকুন

মুক্তির দিগন্ত

সত্যিই সুন্দরী মহিলাদের দিকে চেয়ে থাকতে কার না ভালো লাগে? যদি সে উঠতি বয়সের তরুণ যুবা হয়। কিন্তু শুধু কি ভরা যৌবনেই সুন্দরী মহিলাদের প্রতি এমন আসক্তির জন্ম হয়? মধ্যবয়সী টাক মাথা ভুঁড়িয়াল দাঁত পড়া পুরুষও কম যায় না। সেই অভিজ্ঞতা সুন্দরী মহিলা মাত্রেরই রয়েছে। পথে ঘাটে বাসে ট্রামে কামাসক্ত দৃষ্টির পুরুষের কোন অভাব নাই।…

পড়তে থাকুন

বিশ্ববিদ্যালয় ও তার আচার্য

আচার্য শব্দটির ভিতর একটি পবিত্র অনুষঙ্গ রয়েছে। যার মূল অভিমুখ হচ্ছে মঙ্গলসাধন। অর্থাৎ হিত সাধন। আচার্য বলতে আমরা বুঝি যিনি দীক্ষাগুরু। যিনি দীক্ষিত করেন। দীক্ষিত করেন মানবকল্যাণের লক্ষ্যে। তিনিই আচার্য। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধানও সেই আচার্য নামেই অভিহিত হয়ে থাকেন। কিন্তু আশ্চর্য্যের বিষয় হলো স্বাধীন ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য হন সংশ্লিষ্ট রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান হিসাবে যিনি নিযুক্ত থাকেন,…

পড়তে থাকুন

সকলেই পাশ অনেকেই প্রথম

এই প্রথম মাধ্যমিক পরীক্ষায় সকলেই পাশ। শুধু তাই নয়। বিশ্ব রেকর্ড করে ৭৯ জন পরীক্ষার্থী প্রথম! সম্ভবত গিনস বুক অফ রেকর্ডসেও এই রেকর্ড ধরানো যাবে না। এমনই বহর রেকর্ডের। এই প্রথম পরীক্ষায় না বসেই সকলেই পাশ। পরীক্ষায় না বসেই ৭৯ জন প্রথম। না, শুধু যে পশ্চিমবঙ্গ সরকার মাধ্যমমিক পরীক্ষা নিতে পারেনি তা নয়। পরীক্ষা নিতে…

পড়তে থাকুন

সিঙ্গুর সিনড্রম

সিঙ্গুরে টাটাদের কারখানা হলে সিঙ্গুরবাসীর ভাগ্য বদলিয়ে যাবে। এমটাই সিঙ্গুর আন্দোলনের সময় তৎকালীন সরকার ও শাসকদলের পক্ষ থেকে মানুষকে বোঝানো হতো। এবং পরিবর্তনের পরবর্তী দশ বছরে সদ্য নির্বাচিত রাজ্য বিধানসভায় প্রবেশের অধিকার হারানোর পরেও অধিকাংশ বামফ্রন্ট সমর্থকদের আজও বলতে শোনা যায়, সিঙ্গুরে টাটাদের কারখানা হলে সিঙ্গুরবাসীর ভাগ্য বদলিয়ে যেত। সম্প্রতি জানা যাচ্ছে, সিঙ্গুর আন্দোলনের অন্যতম…

পড়তে থাকুন

পেগাসাস ইনস্টল্ড

লোকসভা রাজ্যসভায় হইচই। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ইস্তফা দিতে হবে। ভাগ্য ভালো ইস্তফার দাবির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর নাম নেই। সরকার, বিরোধীমত স্তব্ধ করতে গণতন্ত্রের সব রকমের রক্ষাকবচকে নিজ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির মোবাইল ফোনে আড়ি পাতবে, এতো জানাই কথা। হ্যাঁ সেই আড়ি পাতার জন্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সরকারের হাতে নাই। নাই বলেই সেই গুপ্তচর প্রযুক্তি আমদানী করতে হয়েছে…

পড়তে থাকুন

জনতার রাজনীতি

রাজনৈতিক নেতানেত্রীরা প্রতিশ্রুতি দেবেন। ভোট পাবেন। ক্ষমতায় গিয়ে পৌঁছাবেন। এবং প্রতিটি প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করবেন। জনতা চোখবুঁজে দেখবে। পাঁচ বছর ধরে চোককান বন্ধ করে থাকবে। পরবর্তী নির্বাচনী প্রচারে নেতানেত্রীর রোডশোতে গিয়ে ভিড় করবে। জনসভায় গিয়ে নতুন নতুন মিথ্যে প্রতিশ্রুতি শুনে আসবে। এবং আরও বেশি সংখ্যায় মিথ্যেবাদী রাজনৈতিক প্রার্থীদের নির্বাচনে জিতিয়ে নিয়ে আসবে। এই যে একটি চক্র।…

পড়তে থাকুন

ভোটযুদ্ধের মেকআপ

না- ভোটের ফল বেড়িয়ে যাওয়ার পর তাঁকে আর ময়দানে দেখা যায়নি। তিনি জানিয়েছিলেন তাঁর তরুণ বয়সের স্বপ্নের কথা। যখন দেশের জন্য, দশের জন্য কিছু একটা করার বড়ো বাসনা ছিল তাঁর। কিন্তু তখন তাঁর সামনে হয়তো অনুসরণ যোগ্য সেরকম উপযুক্ত কোন নেতা ছিলেন না। যাঁর আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে জনসেবা দেশসেবার কাজে ঝাঁপিয়ে পড়তে পারতেন। ফলে তাঁর…

পড়তে থাকুন

প্রতারণার ফাঁদে

পশ্চিমবঙ্গে ঘুষ না দিলে রাজ্যসরকারের দপ্তরে চাকরি মেলে না সহজে। ইন্টারভিউয়ে পাশ করলেই হবে না। দাবি মতো ঘুষ দিলে তবে মিলবে চাকরি। এমনই একটি ধারণা প্রচলিত হয়ে গিয়েছে। রাজ্য সরকারের প্রায় সকল প্রতিষ্ঠানেই চিত্রটা একইরকম বলেই শোনা যায়। তার সাথে আরও একটি কথা হাওয়া ভাসে। শাসকদলের কেষ্টবিষ্টুদের হাতে টাকা গুঁজে দিলে সরকারী চাকরি পেতে অসুবিধে…

পড়তে থাকুন

তোতাকাহিনী

আমরা অনেকেই টিভি দেখে কাগজ পড়ে গ্লোবালাইজেশনের নামে জয়ধ্বনি দিয়ে থাকি। এই এক মন্ত্র জপে আমরা নিজেদেরকে আধুনিক বিশ্বের নাগরিক হিসেবে দেখতে চাই। আর এই বিষয়ে আমাদের হাতে তুরুপের তাস। ঔপনিবেশিক ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা। মিডিয়া প্রচারিত তত্ত্বে ইংরেজিই নাকি গ্লোবালাইজেশনের ভাষা। আর আমাদের ঘরে ঘরে ছেলেমেয়েরা সেই ভাষাতেই অধিকতর স্বচ্ছন্দ। আবার এই গ্লোবালাইজেশনকে আমরা প্রতিদিন…

পড়তে থাকুন

ধারা ১২৪-এ

ধারা ১২৪-এ। সেই কবে ব্রিটিশ এই আইনটি চালু করেছিল। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন দমন করতে। কবেই ব্রিটিশ চলে গিয়েছে। সাম্রাজ্য শাসনের ভার দিয়ে গিয়েছে দেশীয় শাসকগোষ্ঠীর হাতে। কায়েম করে গিয়েছে এমন এক গণতন্ত্র। যা দেশীয় শাসক শ্রেণীর শ্রেণীস্বার্থ সুরক্ষিত রাখে। সেই শ্রেণীস্বার্থ সুরক্ষিত রাখার অন্যতম এক মেকানিজম এই সিডিশন ল। সোজা বাংলায় রাষ্ট্রদ্রোহ আইন। ধারা ১২৪-এ।…

পড়তে থাকুন

প্রতিবিম্ব

আমাদের বাংলা প্রবাদে বলে, চুরি বিদ্যা মহাবিদ্যা যদি না পড়ে ধরে। কেন? চুরি বিদ্যা ধরা পড়ুক আর নাই পড়ুক নিন্দনীয় এবং শাস্তিযোগ্য একটি অপরাধ নিশ্চয়। তাহলে সেই অপরাধকেও মহাবিদ্যা বলা হচ্ছে কেন? না, হচ্ছে যদি ধরা না পড়ে যায়। অর্থাৎ এর থেকে আমরা দুইটি বিষয় বুঝে নিতে পারি। এক, চুরি করতে গেলে সাহস এবং বুদ্ধি…

পড়তে থাকুন

জরুরী অবস্থা

সরকারের সমালোচনা করা আর দেশবিরোধী চক্রান্ত করা সমার্থক হয়ে গেলে গণতন্ত্রই বিপন্ন হয়। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে সরকার যতই নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতায় ক্ষমতায় আসীন হোক না কেন, সরকারেরে প্রণীত আইন গৃহীত নীতিমালা এবং কর্মপ্রণালী সবসময় প্রশ্নের উর্ধে থাকবে এমনটা নাও হতে পারে। সরকারের আইন নীতিমালা এবং কর্মপ্রণালী সব সময় দেশহিতের পক্ষে উপযুক্তই হবে এমন নিশ্চয়তা কেউই দিতে পারে…

পড়তে থাকুন

ভ্যাক্সিন পাস ভ্যাক্সিন ভিসা

অবশেষে স্থানীয় প্রশাসন থেকে হুকুমনামা জারি হয়ে গিয়েছে। দুই ডোজ ভ্যাক্সিন নেওয়ার প্রমাণপত্র কিংবা করোনা পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট ছাড়া দীঘার কোন হোটেলেই কেউ ঘর ভাড়া পাবে না। ঠিক এই সম্ভাবনার কথাই সকলের আশঙ্কায় ছিল। যাঁরা ইতিমধ্যেই দুই ডোজ ভ্যাক্সিন নিয়ে ফেলেছেন। তাঁরা অবশ্য এই হুকুমনামার সাথে সহমত হবেন। তাঁরা মনে করবেন। এমনটাই তো হওয়া উচিত।…

পড়তে থাকুন

৪২ শতাংশের জনসমর্থন

তিনি বলেছিলেন। জনগণ তাঁকে ক্ষমতায় বসালে তিনি ফৌজদারী মামলায় অভিযুক্ত বিচারাধীন সাংসদ বিধায়ক থেকে শুরু করে পঞ্চায়েত সদস্য পর্য্যন্ত সকল নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের বিচার দ্রুত শেষ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। যাতে কোন প্রকৃত অপরাধী জনপ্রতিনিধির আসন দখল করে না রাখতে পারেন। এমনকি তিনি এমনও প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, তিনি দেশপ্রধান হলে ফৌজদারী মামলার অভিধুক্ত কাউকেই যাতে কোন…

পড়তে থাকুন

সিটিজেনশিপ এমেণ্ডমেন্ট এক্ট

সিএএ। সিটিজেনশিপ এমেণ্ডমেন্ট এক্ট। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ২০১৯। আপনি জানেন আপনি বাঙালি হিন্দু। তাই আপনার ভয় পাওয়ার কিছু নাই।  আপনিও খুশি সরকারও খুশি। এবার এনআরসি, এনআরআইসি করার পথটা পাকাপোক্ত ভাবে প্রশস্ত হয়ে গেল। এনআরসি’তে বা এনআরআইসি’তে আপনার মাথাব্যাথা নাই। আপনি আগে ভারতীয় তারপর বাঙালি। কিন্তু সরকার সেটা দেখবে না। সরকারের খাতায় আপনি আগে বাঙালি তারপর…

পড়তে থাকুন

এন পি আর

এনপিআর অর্থাৎ ন্যাশানাল পপুলেশন রেজিস্টার। বাজেট বরাদ্দ হয়েছে আট হাজার পাঁচশ কোটি টাকা। এই টাকা শুধু মাত্র খরচ হবে দেশে বসবাসকারী মানুষের তথ্য ভাণ্ডার তৈরী করতে। না এমন নয়, সরকারের কাছে এই তথ্য ভাণ্ডার নাই। আছে। দশ বছর আগেই করা হয়েছিল প্রথম এনপিআর। দশ বছর অন্তর এই তথ্য ভাণ্ডার নবীন করণ করার নিয়ম। নিয়মটি করা…

পড়তে থাকুন

দুঃখিনী বর্ণমালা

কবি শামসুর রহমানের একটি কবিতার নাম, বর্ণমালা, আমার দুঃখিনী বর্ণমালা। জানি না কবি যখন কবিতাটি লিখছিলেন। সেই সময়ে তাঁর কোন ধারণা ছিল কিনা, বাঙালি নিজেই সেই দুঃখিনী বর্ণমালাকে সজ্ঞানে বর্জন করার নানান পথ ও উপায়, যুক্তি ও অজুহাত খুঁজে নেবে। কাঁটাতারের উভয় পারেই। সমান উদ্যমে। আপনি ঢাকা কিংবা কলকাতা। যেখানেই যান। কম বেশি সবখানেই দেখবেন…

পড়তে থাকুন

অবরুদ্ধ শিক্ষাক্ষেত্র

কথায় বলে চোখ বন্ধ থাকলেই প্রলয় বন্ধ থাকে না। সরকার ক্রমান্বয়ে শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যয়বরাদ্দ কমাতে কমাতে, শিক্ষাকে অত্যন্ত ব্যয়বহুল একটি বিলাস সামগ্রীর পর্যায় নিয়ে যেতে চলেছে। আর এই পরিকল্পনা যথেষ্ঠই সাফল্যের মুখ দেখে ফেলেছে ইতিমধ্যেই। এবং এরই পাশাপাশি শিক্ষাক্ষেত্রে বেসরকারী বিনিয়োগ বৃদ্ধির সাথে সাথেই শিক্ষা বিপুল মুনাফা লাভের এক লাভজনক ব্যবসায়ে পরিণত হয়ে গিয়েছে। এবং সেখানে…

পড়তে থাকুন

ঠগ বাছতে গাঁ উজার

সংবাদ শিরোনামে পশ্চিমবঙ্গ। সৌজন্যে জালিয়াতদের জালিয়াতির পেশা। হ্যাঁ, এটিও একটি পেশা। এবং ভালোমতো আয়। জালিয়াতি আর ভণ্ডামির ভিতর কতটুকু পার্থক্য? গবেষণার বিষয় হতে পারে অবশ্য। তবে নির্বাচনে জিতলে সুইস ব্যাংকের সব কালোটাকা উদ্ধার করে প্রত্যেক ভারতীয়ের ব্যাংক একাউন্টে পনেরো লাখ করে টাকা দেওয়ার নির্বাচনী মিথ্যা প্রতিশ্রুতি অবশ্য ভণ্ডামি নয়, কারণ মিডিয়া তেমন কথা বলে না।…

পড়তে থাকুন

নিমিত মাত্র হুঁ ম্যায়

ধরা যাক আপনার জীবনীগ্রন্থ ছাপা হয়ে গিয়েছে। খুবই আনন্দের খবর। আপনার ইচ্ছা সেই গ্রন্থপ্রকাশ অনুষ্ঠানের আয়োজন হোক আপনারই বাড়িতে। কিংবা ধরা যাক আপনার প্রকাশকের ইচ্ছা অনুসারেই সেই গ্রন্থপ্রকাশ অনুষ্ঠান আপনার বাড়িতেই আয়োজিত হলো আপনারই জন্মতিথিতে। আপনি আমন্ত্রণ করলেন আপনার বন্ধুবান্ধব কিংবা শহরের বিশিষ্টজনেদের। যাঁদের সাথে আপনার যোগাযোগ রয়েছে কোন না কোনভাবে। তাঁরা এলেন। মহা সমারোহে…

পড়তে থাকুন

এরাজ্যের বামপন্থা

পশ্চিমবঙ্গের বামফ্রন্ট কোন কালেই সাম্যবাদী অর্থনৈতিক ধারাকে সমাজে প্রয়োগের বিষয়ে উৎসাহী ছিল না। তার মূলত দুইটি কারণ। বাঙালি মানসিকতায় সাম্যাবাদ তাত্ত্বিক আলোচনার পরিসরের বাইরে জীবনের কোন স্তরেই অভিপ্রেত নয়। একটি কথা আমরা কেউই খেয়াল রাখি না, সাম্যবাদ স্বদেশ চেতনা ও জাতীয়তাবাদকে অবলন্বন করেই একমাত্র গড়ে উঠতে পারে। কোন দেশেই স্বদেশ চেতনা ও জাতীয়তাবোধের প্রকৃত উন্মেষ…

পড়তে থাকুন

ভোটারের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা

ভোট আসে ভোট যায়। আমি আপনি ভোটের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকি। কখন বুথের ভিতরে ঢুকব। আমাদের পছন্দের রাজনৈতিক দলের মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বাড়ি ফিরব। তারপর নির্বাচনী ফলাফলের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা! আপনার প্রদত্ত ভোটে প্রার্থী বিজয়ী হলে আপনার আনন্দের অন্ত নাই। কেননা এই ভোটটি আপনি নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ের উপর বা নীতির উপর নির্ভর করে…

পড়তে থাকুন

মগজে কারফিউ

মগজে কারফিউ জারি হয়ে গিয়েছে। রাষ্ট্রযন্ত্রের হর্তাকর্তা বিধাতারা যা বলবেন, যখন বলবেন, যেভাবে বলবেন, ঠিক তেমনভাবেই ভাবতে হবে ও ভাবাতে হবে আমাদেরকে। অন্য কোন ভাবে ভাবলেই আপনি দেশপ্রেমী নন। অন্য কোন ভাবে ভাবালেই আপনি অবশ্যই দেশদ্রোহী। রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদেরই মদতদাতা। অতএব আপনার ভাগ্যে ঘচাং-ফু হয়ে যেতে পারে যেকোন সময়েই। এখন রাষ্ট্রযন্ত্র তো একটি বিমূর্ত সত্তা।…

পড়তে থাকুন

ভোটার বনাম নাগরিক

এ এক অদ্ভুত সময়। মিডিয়া যেমন বোঝাচ্ছে মানুষ তেমনই বুঝছে। মিডিয়া সেটাই বোঝাচ্ছে, সরকার যেটা বলছে। এর মধ্যে কোন ফাঁক নাই। মানুষের একটাই সুবিধা, কষ্ট করে কোন বিষয়ে চিন্তা করার দরকার নাই। এটাই এই সময়ের চিত্র। ফলে মানুষ একথা ভাবছে না, একজন নাগরিককে সরকার কি করে নাগরিকত্ব দেবে? সরকার তার মর্জি মতো তাকেই নাগরিকত্ব দিতে…

পড়তে থাকুন

তরল হীরে ভ্যাক্সিন

রাতভোর লাইন দিয়েও ভ্যাক্সিন মিলছে না অনেক জায়গাতেই। চাহিদার তুলনায় যোগান কম। সরকার বিপুল পরিমাণ চাহিদার তুলনায় মানুষের কাছে পর্যাপ্ত ভ্যাক্সিন পোঁছিয়ে দিতে পারছে না। কারণ সরকার ভ্যাক্সিন তৈরী করছে না। নির্ভর করছে বেসরকারী ভ্যাক্সিন প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলির উপরে। চাহিদার তুলনায় যোগান নিশ্চিত করতে সরকারকে আরও বেশি সংখ্যক ভ্যাক্সিন প্রস্তুতকারী সংস্থার সাথে যোগাযোগ করতে হচ্ছে। যাতে…

পড়তে থাকুন

কোভিশীল্ড কোভ্যাক্সিন

ভ্যাক্সিনের প্রসঙ্গ উঠলেই এখন রাজ্যবাসীর চোখে দেবাঞ্জন দেবের মুখাবয়ব ভেসে উঠছে। ভ্যাক্সিনের ভায়ালের ছবি দেখলেই জাল ভ্যাক্সিনের বিভীষিকা মনের ভিতর জুড়ে বসছে। আসল ভ্যাক্সিন না নকল ভ্যাক্সিন এই নিয়ে রাজ্যবাসী খুবই সন্ত্রস্ত এখন। আর অপর দিকে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভের ভারতব্যাপী সাফল্যে, মানুষ প্রায় নাওয়া খাওয়া ভুলে ভ্যাক্সিনের পিছনে ছুটছে। সরকারী হাসপাতাল থেকে যাঁরা ভ্যাক্সিন নিচ্ছেন…

পড়তে থাকুন

সর্ষের মধ্যেই ভুত

আসুন একটা কথা মন খুলে স্বীকার করে নেওয়া যাক। রাজ্য সরকার ও তার প্রশাসনের ভিতরে অনেক রকমের গলদ রয়ে গিয়েছে। সরকারে ক্ষমতাসীন দলের কর্মী সমর্থক ও ভোটার, আপনি যেই হোন না কেন। বিরোধী রাজনৈতিক শিবিরের কে কি বলছে। সেটি বড়ো কথা নয়। শাসকদলের কর্মী সমর্থক ও ভোটার হিসেবে আপনারও দায় রয়েছে এই কথা স্বীকার করে…

পড়তে থাকুন

বঙ্গজীবনে চরিত্রবদল

কোনো একটি জাতিগোষ্ঠির চরিত্র কালের প্রবাহে, সেই জাতিগোষ্ঠির মাতৃভূমির ভৌগলিক অবস্থানের নিরিখে এবং বিশ্বের অন্যান্য জাতিগোষ্ঠির সাথে মেলামেশার আবহে কালে কালে ধীরে ধীরে গড়ে উঠতে থাকে। সেটাই স্বাভাবিক। চরিত্রের সেই বিকাশের পর্ব থেকে পর্বান্তরে অনেক ভাঙ্গা গড়ার মধ্যে দিয়ে গড়ে ওঠে জাতিসত্তা। সেই জাতিসত্তার চরিত্রের বদল কিন্তু দুদিনেই হঠাৎ হয় না। প্রায় দুইহাজার বছরের ইতিহাস…

পড়তে থাকুন

কৃষক আন্দোলনের সাত মাস

দিল্লীর সীমান্তে অবস্থানরত কৃষক আন্দোলনের আজ সাত মাস পূর্ণ হলো। অন্ধভক্তদের কথা থাক। তার বাইরেও অনেক মানুষই চলতি কৃষক আন্দোলন তার ধার হারিয়ে দিশাহারা। এমনটাই ধারণা করে নিচ্ছেন। সৌজন্যে মূলধারার সংবাদ মাধ্যমগুলি। সরকারের ভেঁপু বাজাতেই যাদের বেশির ভাগ সময়টা ব্যায় হয়ে যায়। বাকিটা সত্যকে ধামাচাপা দিতে। ফলে সাধারণ জনতার হাতে বিশেষ কোন বিকল্প থাকে না…

পড়তে থাকুন

চক্রব্যূহে একা

না এখনই কোন লোকাল ট্রেন নয়। জানিয়ে দিয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। লোকাল ট্রেন চালু করলেই হু হু করে করোনা সংক্রমণ আরও বৃদ্ধি পাবে। এমনটাই তাঁর আশংকা। একটা বড়ো অংশের মানুষই মুখ্যমন্ত্রীর সাথে সহমত হবেন। করোনা সংক্রমণ আরও অনেকটা না কমে আসা অব্দি যারা লকডাউন চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার স্বপক্ষে। কিন্তু সেই সাথে সমাজের বৃহত্তর জনসাধারণ কিন্তু এই…

পড়তে থাকুন

ভ্যাক্সিন বিভীষিকা

কলকাতাবাসী বেশ কিছুদিন ভাগাড়ের মাংস খেয়ে দিব্যি হজম করে ফেলেছিল। ভাগাড়ের মাংসের বিশাল নেটওয়ার্কের আওতায় থাকা কলকাতাবাসীকে সেই মাংস অন্তত যমালয়ে পাঠাতে পারেনি। কলকাতাবাসীর সহ্যশক্তির তুলনা নাই। ভাগাড়ের মাংস যারা হজম করতে পারে, তাদের জাল ভ্যাক্সিনে আর কতটা ক্ষতি করতে পারবে? বিশেষ করে যদি তা শুধুই জলে ভরা হয়ে থাকে। তাই কলকাতাবাসীর স্বাস্থ্য নিয়ে আমরা…

পড়তে থাকুন

ভুয়ো ভ্যাক্সিনেশন প্রকল্প

এবারে ভুয়ো আধিকারিক। ভুয়ো পরিচয়পত্র। ভুয়ো ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্প। কলকাতা কর্পোরেশনের নাম নিয়ে। কর্প‌োরেশনের লোগা সহ। এক আধ দিনের ব্যাপারও নয়। প্রতিদিন শ’য়ে শ’য়ে নাগরিক নাম লিখিয়ে পরিচয়পত্র দেখিয়ে সেই ভ্যাক্সিনেশনের লাইনে দাঁড়িয়ে ভ্যাক্সিন নিচ্ছে। নিখরচায় ভ্যাক্সিন। নিশ্চয়ই সরকারী প্রকল্পেই দেওয়া হচ্ছে। এমনটাই বিশ্বাস ছিল স্থানীয় জনগণের। বিশ্বাসে মিলায় ভ্যাক্সিন। তর্কে বহুদূর। ফলে স্থানীয় সাংসদকেও সেই…

পড়তে থাকুন

লোড হচ্ছে…

Something went wrong. Please refresh the page and/or try again.

সত্যের পক্ষে পক্ষপাতহীন

রেখাচিত্র সাবস্ক্রাইব করতে

আমাদের কথা

প্রতিদিনের কথা প্রতিদিন লিখে রাখা। না, কাউকে বোকা বানানোর উদ্দেশে নয় রাজনীতিবিদ কিংবা শিল্পী বুদ্ধিজীবীদের মতোন। গ্রাউণ্ড রিয়ালিটির কাছাকাছি পৌঁছানোই হোক মূল লক্ষ্য। লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রতিদিনের নিজস্ব জীবনযাপনে দেশের রাজনীতির যে আঁচ সহ্য করতে থাকে, সেই আঁচের প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠুক রেজকার এই রেখাচিত্রে।